1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. dbcjournal24@gmail.com : ডিবিসি জার্নাল ২৪ : ডিবিসি জার্নাল ২৪
বুধবার, ০৪ অগাস্ট ২০২১, ০৯:২৯ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দুর্গাপুরে পাওনা টাকা না দেওয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান লাঞ্চিত, ৯৯৯-এ ফোন পেয়ে উদ্ধার করেছে পুলিশ দুর্গাপুরে মানব পাচার দিবস উপলক্ষে খাদ্য ও মাস্ক বিতরণ রাজশাহীতে প্রধানমন্ত্রীর সহকারী প্রেস সেক্রেটারী পরিচয় দিয়ে ছাত্রলীগ নেতা গ্রেফতার দুর্গাপুরে ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে বিদ্যুৎ চুরির অভিযোগে থানায় জিডি, সরঞ্জাম জব্দ করেছে পুলিশ রাজশাহী মেডিকেলে করোনায় আরও ১৪ জনের মৃত্যু বিশ্বে করোনায় মৃত্যুতে বাংলাদেশের অবস্থান দশম বাংলাদেশ ক্রিকেট দলকে প্রধানমন্ত্রীর অভিনন্দন সাংবাদিক গ্রেপ্তারে আইনে বিচ্যুতি পেলে ব্যবস্থা: পুলিশ সদরদপ্তর দু্র্গাপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অক্সিজেন কনসেনট্রেটর উপহার দিলেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী আ.লীগ সরকার করোনা সঙ্কটেও মানুষের স্বাস্থ্যসেবা উন্নয়নে বদ্ধপরিকর- ডাঃ মনসুর রহমান এমপি

Categories

বানেশ্বরে হোটেল সুরমা থেকে চার যৌনকর্মী আটক

  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ২৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩২২ বার পড়া হয়েছে
নিজস্ব প্রতিবেদক: রাজশাহী পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বরে হোটেল সুরমা আবাসিক থেকে চার যৌনকর্মীকে আটক করেছে পুঠিয়া থানা পুলিশ। মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় সময় পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বরে সকল আবাসিক হোটেল হোটেল পুঠিয়া থানা পুলিশ অভিযান পরিচালনা করে এসময় হোটেল সুরমা আবাসিক থেকে চার যৌনকর্মীকে আটক করে পুঠিয়া থানা পুলিশ।
আটককৃতরা হলো, নাটোর সদর এলাকার আক্তার আলীর মেয়ে সুমি খাতুন (২৫), কুতুবদিয়া কক্সবাজার এলাকার মৃত সৈয়দ আহম্মেদের মেয়ে তসলিমা আক্তার (২৬), নওগাঁ জেলার সাপাহার এলাকার কটুর মেয়ে জহিরুন খাতুন (২৭) ও বগুড়া জেলার ধনুট চকবাড়ি এলাকার জেন হোসেনের মেয়ে জেসমিন খাতুন (২৫)।
পুঠিয়া থানার অফিসার ইনচার্জ রেজাউল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে আমি ও আমার ফোর্স পুঠিয়া উপজেলার বানেশ্বর ট্রাফিক মোড় সংলগ্ন মনি মার্কেটের দোতালায় হোটেল সুরমায় অভিযান পরিচালনা করি। এসময় আমাদের উপস্থিতি পেয়ে হোটেলের ম্যানেজার ও কর্মচারীরা পালিয়ে যায়। পরে হোটেলের ভিতরে থাকা চার যৌনকর্মীকে আটক করা হয়।
তাদের বিরুদ্ধে পুঠিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। আদালতের মাধ্যমে তাদেরকে জেলা হাজতে পাঠানো হবে।
এলাকাবাসীর অভিযোগ, বানেশ্বর হাটকে কেন্দ্র করে আবাসিক হোটেল ব্যবসা গড়ে উঠে। আবাসিক হোটেল ব্যবসার আড়ালে হোটেল গুলোতে অবৈধ দেহব্যবসাসহ উঠতি বয়সে ছেলেদের মাদক সেবন আড্ডা চলে। পুঠিয়া উপজেলা প্রশাসন ও পুলিশ প্রসাশন মাঝে মধ্যে অভিযান পরিচালনা করলে কিছুদিন তাদের এ অবৈধ ব্যবসা বন্ধ থাকে। পরে আবার তাদের এ ব্যবসা শুরু হয়। এ কারণে যে সব হোটেলে এধরনের অবৈধ ব্যবসা হয় সেসব হোটেলগুলো বন্ধের দাবি জানিয়েছেন এলাকার সচেতণ মহল।
শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন