1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. dbcjournal24@gmail.com : ডিবিসি জার্নাল ২৪ : ডিবিসি জার্নাল ২৪
রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৪:১৩ পূর্বাহ্ন

Categories

দুর্গাপুরে ট্রাক ভাংচুর ও পানের আড়তের শ্রমিকের মাথা ফাটালো ছাত্রলীগ নেতারা

  • আপডেট করা হয়েছে মঙ্গলবার, ২৯ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ৯২৪ বার পড়া হয়েছে

দুর্গাপুর প্রতিনিধি: রাজশাহীর দুর্গাপুরে ছাত্রলীগ কর্মীর মোটরসাইকেলে ধাক্কা মারার জের ধরে ট্রাক ভাংচুর করেছে ছাত্রলীগের নেতারা। এ সময় বাধা দিতে গেলে মাসুম ইসলাম (২৫) নামের এক যুবকের মাথা ফাটিয়ে দেয়া হয়েছে। আহত মাসুম উপজেলার আলীপুর গ্রামের মিজানুর রহমানের পুত্র বলে জানা গেছে। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে উপজেলার আলীপুর বাজারে পানের আড়তের কাছে এ ঘটনা ঘটে। ঘটনার পর বিক্ষুদ্ধ লোকজন ছাত্রলীগ নেতাদের ধাওয়া করে উত্তম মধ্যম দেয়। পরে প্রাণে বাঁচতে আলীপুর বাজারের একটি শোরুমে আশ্রয় নেয় ছাত্রলীগের নেতারা। এ ঘটনায় উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়লে খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে বিক্ষুদ্ধ লোকজনকে নিবৃত করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনেন।

আলীপুর গ্রামের ইউপি সদস্য মানিক আলী জানান, মঙ্গলবার বিকেলে পৌর এলাকার দেবীপুর এলাকায় ছাত্রলীগ কর্মী রোহানের মোটরসাইকেলের সাথে আলীপুরগামী একটি ট্রাকের সাথে ধাক্কা লাগে। পরে ছাত্রলীগ কর্মী রোহান সংঘবদ্ধ হয়ে ওই ট্রাকটিকে ধাওয়া করে। বিকেল সাড়ে ৫ টার দিকে আলীপুর বাজারের পানের আড়তের কাছে গিয়ে লোহার রড ও হাতুড়ি দিয়ে ট্রাকটি ভাংচুর শুরু করে। এ সময় বাধা দিতে গেলে পানের আড়তের কর্মচারী মাসুম ইসলামের মাথা ফাটিয়ে দেয় ছাত্রলীগ কর্মীরা। খবর পেয়ে উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক ও পৌর ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শিমুল ইসলাম কযেকজন ছাত্রলীগ কর্মী নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌছালে উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ে। এক পর্যায়ে আলীপুর বাজার ও পানের আড়তের লোকজন বিক্ষুদ্ধ হয়ে ছাত্রলীগ নেতাদের ধাওয়া করলে ছাত্রলীগ নেতারা পালিয়ে গিয়ে আলীপুর বাজারের বাচ্চুর শোরুমে গিয়ে আশ্রয় নেয়।

আলীপুর বাজারের পান ব্যবসায়ী কালাম চৌধুরী জানান, ছাত্রলীগ নেতাদের মোটরসাইকেলে ধাক্কা দেয়া ট্রাকটিকে ধরতে না পেরে ছাত্রলীগের নেতারা পানের আড়তের কাছে এসে আগে থেকেই দাঁড়িয়ে থাকা পান বোঝাই একটি ট্রাকে আকষ্মিক হামলা চালিয়ে ভাংচুর শুরু করে। এ সময় তার পানের আড়তের কর্মচারী মাসুম বাধা দিতে গেলে তাকেও মেরে মাথা ফাটিয়ে দেয়া হয়। এ ঘটনায় বাজারের বিক্ষুদ্ধ লোকজন ছাত্রলীগ নেতা আতিক, তার ভাই বাপ্পী ও ছাত্রলীগ নেতা শিমুল সহ কয়েকজনকে ধাওয়া করে উত্তম মধ্যম দিয়েছে। পরে তারা পালিয়ে গিয়ে বাচ্চু নামের এক ব্যাক্তির শোরুমে আশ্রয় নেয়।

উপজেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক আতিকুর রহমান আতিক জানান, আমি জরুরী কাজে বাগমারায় অবস্থান করছিলাম। আমার কর্মীকে ট্রাকে ধাক্কা দিয়েছে এমন সংবাদ পেয়ে আলীপুর বাজারে পৌছে বিক্ষুদ্ধ লোকজনকে শান্ত করার চেষ্টা করি। এক পর্যায়ে বিষয়টি নিয়ে সমঝোতা করতে বাচ্চু নামের ওই ব্যাক্তির শোরুমে মিমাংসার জন্য বসি। ঘটনাটি নিছক ভুল বুঝাবুঝি বলেও দাবি করেন ছাত্রলীগ নেতা আতিক।

দুর্গাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) হাশমত আলী জানান, খবর পেয়ে সঙ্গে সঙ্গে ঘটনাস্থলে পুলিশ ফোর্স পাঠানো হয়। পরে আমি নিজেও ঘটনাস্থলে গিয়ে বিষয়টি নিজেই দেখভাল করি।
এ ঘটনায় উভয় পক্ষ বসে মিমাংসা করে নিয়েছে বলেও জানান ওসি।

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন