1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. dbcjournal24@gmail.com : ডিবিসি জার্নাল ২৪ : ডিবিসি জার্নাল ২৪
নাটোরে ডিবি পরিচয়ে ছাত্রলীগ কর্মীকে তুলে নিয়ে নির্যাতন, অন্য দুই ছাত্রলীগ কর্মী কারাগারে - ডিবিসি জার্নাল২৪
বৃহস্পতিবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২২, ০৩:০৪ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
৮ই ডিসেম্বর তাহেরপুর পৌরসভার প্রতিষ্ঠাতা শহীদ আলো খন্দকার এর ১৯তম শাহাদাত বার্ষিকী বাগমারা গনিপুর ইউপি’তে মাধাইমুড়ি-মরাকুড়ি রাস্তা’র বক্সকাটিং এর উদ্বোধন বাবা হত্যার বিচার চাইতে প্রধানমন্ত্রীর কাছে ছুটে আসলেন জাহেদুল নাশকতার মামলায় বিএনপির ৩ নেতা গ্রেপ্তার পুঠিয়ায় প্রতীক বরাদ্দের আগেই চেয়ারম্যান পদপ্রার্থীর পোষ্টার ছাপিয়ে ফেসবুকে প্রচার দুর্গাপুরের ভবানীপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৫ম শ্রেনীর পরীক্ষার্থীদের বিদায়ে অনুষ্ঠান নাটোরে আখ ক্ষেত থেকে মৃতদেহ উদ্ধার নগর নিরাপত্তায় আরএমপি’র বিভিন্ন কার্যক্রম পরিদর্শন করলেন মাননীয় রাসিক মেয়র বাগমারায় মহান বিজয় দিবস উদযাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত ছাত্রলীগের সম্মেলন মঙ্গলবার, দুই পদে আড়াই শ প্রার্থী

Categories

নাটোরে ডিবি পরিচয়ে ছাত্রলীগ কর্মীকে তুলে নিয়ে নির্যাতন, অন্য দুই ছাত্রলীগ কর্মী কারাগারে

  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ৩ আগস্ট, ২০২২
  • ৯৩ বার পড়া হয়েছে

নাটোর প্রতিনিধি

ডিবি পুলিশ পরিচয়ে এক ছাত্রলীগ কর্মীকে তুলে নিয়ে নাটোরের গোপালপুর পৌরসভার মেয়রের বাড়িতে নির্যাতন করার অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ মামলায় অন্য দুই ছাত্রলীগ কর্মীকে কারাগারে পাঠিয়েছেন আদালত। গতকাল সোমবার দুপুরে অভিযুক্ত দুই ছাত্রলীগ কর্মী লালপুর আমলি আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন চাইলে আদালত তাঁদের জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করেন। তবে এ–সংক্রান্ত মামলার অপর পাঁচ আসামিকে আদালত জামিন দিয়েছেন।

এর আগে এ ঘটনায় গত শনিবার উপজেলার গোপালপুর পৌর ছাত্রলীগের কর্মী আরমান হোসেন (২০) লালপুর থানায় মামলা করেন। মামলায় মেয়রের ঘনিষ্ঠজন হিসেবে পরিচিত পৌর ছাত্রলীগের সভাপতি মেহেদী হাসানসহ আটজনকে আসামি করা হয়েছে।
মামলার এজাহার সূত্রে জানা গেছে, গত শুক্রবার দুপুরে আরমান হোসেনকে ডিবি পুলিশ পরিচয়ে চার ব্যক্তি মোটরসাইকেলে তুলে নেন। পরে তাঁকে গোপালপুর পৌরসভার মেয়র ও পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি রোখসানা মোর্তুজার বাড়িতে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে তাঁকে বেধড়ক মারধর করা হয়। একপর্যায়ে তাঁকে প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে বাড়ি থেকে বের করে দেওয়া হয়। এ ঘটনায় আরমান হোসেন বাদী হয়ে মামলা করেন।

লালপুর আমলি আদালতের জিআরও বেল্লাল হোসেন বলেন, সোমবার দুপুরে মামলার আসামি মেহেদী হাসানসহ আট আসামি লালপুর আমলি আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিনের দরখাস্ত করেন। শুনানি শেষে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. মোসলেম উদ্দীন আসামি ইমরান হোসেন (২৮) ও ছোটন মন্ডলের (২৮) জামিনের আবেদন নামঞ্জুর করে তাঁদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। এ সময় আদালত আসামি মেহেদী হাসান (২১), রিফাতুর প্রত্যয় (২৫), রেজুয়ানুল প্রতীক (২৫), শরিফুল ইসলাম (২৮) ও মো. মাউনের (২৫) জামিন আবেদন মঞ্জুর করেন।
জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম বলেন, বাদী ও আসামিরা ছাত্রলীগের কর্মী। পুলিশ বিষয়টি তদন্ত করছে। এ ছাড়া দলীয়ভাবে খোঁজখবর নেওয়া হচ্ছে। কোনো ছাত্রলীগ কর্মী যদি কাউকে নির্যাতন করেন, তাহলে তাঁর বিরুদ্ধে দলীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে। ফেসবুকে প্রত্যয় ও প্রতীককে নিয়ে ‘কটূক্তি’ করার জেরে এ ঘটনা ঘটেছে বলে শোনা যাচ্ছে।

বাড়িতে তুলে এনে নির্যাতনের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পৌর মেয়র রোখসানা মোর্তুজা। তিনি বলেন, তাঁর দুই ভাগনে প্রত্যয় ও প্রতীককে নিয়ে আরমান হোসেন ফেসবুকে আপত্তিকর পোস্ট দিয়েছিলেন। এ জন্য তিনি জনপ্রতিনিধি হিসেবে আরমান হোসেনকে তাঁর বাড়িতে ডেকে আনেন। তবে পুলিশ পরিচয়ে তুলে আনা হয়নি। বাড়িতে ডেকে আনার পর ফেসবুকের ওই পোস্টের বিষয়ে জানতে চাওয়া হয়েছিল। ওই সময় আরমান হোসেনকে মারধর করা হয়নি বলে তিনি দাবি করেন।

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন