1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. dbcjournal24@gmail.com : ডিবিসি জার্নাল ২৪ : ডিবিসি জার্নাল ২৪
অডিও ফাঁস: ক্ষমা চাইলেন ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি - ডিবিসি জার্নাল২৪
মঙ্গলবার, ২৯ নভেম্বর ২০২২, ০৭:১৬ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দলীয় প্রার্থী হিসাবে মনোনিত হওয়ায় পিন্টুকে ফুল দিয়ে বরণ করে নিয়েছে বাঘা পৌর বাসী কেশরহাটে কৃষকদলের লিফলেট বিতরন এসএসসিতে জিপিএ-৫ পেয়েছেন ২ লাখ ৬৯ হাজার ৬০২ জন দুর্গাপুরে বাংলাদেশ আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষা বাহিনীর উপজেলা সমাবেশ-২০২২ উদযাপন দুর্গাপুর পৌর ছাত্রলীগের আহ্বায়ক কমিটি অনুমোদন নাটোরে বিভিন্ন দাবীতে ইটভাটা মলিকদের মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান “বাগমারা উপজেলায় অবৈধভাবে চলছে অসংখ্য ইটভাটা” পুঠিয়ার মোল্লাপাড়ায় মদিনা ইটের ভাটায় কয়লার পরিবর্তে কাঠের খড়ি দিয়ে ইট পোড়ানোর অভিযোগ পরিসংখ্যানে কে এগিয়ে, জার্মানি নাকি স্পেন মাদক নির্মূলে বিয়ের আগে ডোপ টেস্ট চান ডেপুটি স্পিকার

Categories

অডিও ফাঁস: ক্ষমা চাইলেন ইডেন ছাত্রলীগ সভাপতি

  • আপডেট করা হয়েছে সোমবার, ২২ আগস্ট, ২০২২
  • ৬৩ বার পড়া হয়েছে

নিউজ ডেস্ক : রাজধানীর ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি তামান্না জেসমিন রিভার একটি অডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ছড়িয়ে পড়েছে।

ওই অডিওতে রিভাকে বলতে শোনা যায়, হলে তার কক্ষ থেকে কোনো ছাত্রীকে বের করার ক্ষমতা ইডেন কলেজ অধ্যক্ষেরও নেই।

ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতির ওপরে কেউ নেই বলতেও শোনা যায় তাকে।

ফাঁস হওয়া অডিওটির জন্য সংগঠনের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন রিভা।

রিভার অডিওটি ছড়িয়ে পড়ে শুক্রবার রাতে। ইডেন কলেজের রাজিয়া হলের ২০২ নম্বর কক্ষে থাকা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলা কথাগুলোর অডিও সেটি।

অডিওতে যে কথাগুলো শোনা যাচ্ছে, তা নিজের বলে স্বীকার করে নিয়েছেন রিভা। এতে তাকে ২০২ নম্বর কক্ষে থাকা শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে বলতে শোনা যায়, ‘তোরা লিগ্যাল তাতে আমার…গেছে। কোন হ্যাডাম দেখাইতে আসিস তোরা। আমার পলিটিক্যাল রুমে তোরা লিগ্যাল থাকবি কি না, সেটা তোদের বিষয়। কে কে টাকা জমা দিছিস? আমারে দিছিস? আর কে লিগ্যাল?’

ওই সময় পাশ থেকে একজনকে বলতে শোনা যায়, ‘ও তো অসুস্থ; বাসায় গেছে?’ জবাবে ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘২০২-এ আর লিগ্যাল কে? তোরা লিগ্যাল তাতে আমার কী…ছিঁড়া গেছে? বল? আমি কি…তোদের?’

রিভা বলতে থাকেন, ‘চ্যাটাং চ্যাটাং করতেছোস। এক পায়ে পাড়া দিমু, আরেক পা টাইনা ধইরা ছিঁড়া ফেলমু। চার মাস হয়ে গেছে। ফাইজলামি শুরু করছিস।’

ওই সময় সুমনা মীর নামের এক ছাত্রীকে গালমন্দ করতে শোনা যায়। ইডেন কলেজ ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, ‘বুঝিস না, পলিটিক্যাল রুমে থাকিস। তোদের লিগ্যাল করাইছে, তাতে আমার…কী? আমি যদি একটা সিট না দিই, ২০২ থেকে তোদের কোন বাপ সিট দেবে? ম্যাডামরা দেবে? ক্ষমতা আছে ম্যাডামদের?

‘ম্যাডামদের ক্ষমতা আছে আমাদের রুম থেকে একটা মেয়েকে বের করার? ইডেন কলেজের প্রিন্সিপালেরও ক্ষমতা নেই এ রুম থেকে একটা মেয়েকে বের করার।

‘একদম গলায় পাড়া দিয়ে ধরতে ইচ্ছা করতেছে। আগামী এক ঘণ্টার মধ্যে যে রুমে বলব, সে রুমে যাবি। আমার সঙ্গে হ্যাডাম দেখাইতে আসে!’

ইডেন কলেজ প্রশাসনকে চ্যালেঞ্জ করে ছাত্রলীগ নেত্রী রিভাকে আরও বলতে শোনা যায়, ‘একটা সিঙ্গেল মেয়ে যদি ওই রুমে এসে কন্ট্রোল করতে চায়, সে হোক নেত্রী, ইডেন কলেজের প্রিন্সিপাল ম্যামও কোনো মেয়ে দিতে পারবে না।

‘এটুকু সেন্স থাকা উচিত ছিল। রুমটা যেহেতু ইডেন কলেজের প্রেসিডেন্ট নিয়ে নিছে, ইডেন কলেজের প্রেসিডেন্টের ওপরে আর কেউ নাই।’

ফোনে সংযোগ না পাওয়ায় অডিওর বিষয়ে রিভার বক্তব্য জানা যায়নি, তবে একটি সংবাদমাধ্যমে রিভাকে উদ্ধৃত করে বলা হয়, ‘মেয়েরা প্রোগ্রামে যায়নি। তাই তাদের একটু বলতে আসছিলাম। তারা প্রোগ্রাম না করায় তাদের রুম থেকে শিফট করার কথা বলছি।’

তিনি আরও বলেন, ‘হল প্রশাসন তো আর সবাইকে রুম চেঞ্জ করাতে পারবে না। এটা আমার দেখভাল করা রুম।

‘আমি এখানে যেভাবে ভালো হবে, সেভাবে শিফট করাব। এটা আমার এখতিয়ার।’

অডিওতে রিভার বক্তব্য নিয়ে জানতে চাইলে ইডেন কলেজের অধ্যক্ষ অধ্যাপক সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য বিষয়টি এডিয়ে যান।

তিনি বলেন, ‘ইডেন কলেজের হোস্টেল সুপার আছেন, অ্যাসিস্ট্যান্ট সুপার আছেন। উনারাই হোস্টেলের সব কিছু দেখাশোনা করেন। ফলে বিষয়টি উনারাই দেখবেন।’

ছড়িয়ে পড়া অডিও সম্পর্কে রাজিয়া হলের প্রাধ্যক্ষ নারগিস রুমা বলেন, ‘অডিওটা আমি শুনেছি।’

সিটের জন্য রিভাকে টাকা দিতে হয় কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘সেই রুমে থাকা মেয়েগুলো ব্যাংকে টাকা জমা দিয়েছে। এটা ঠিক যে টাকাগুলো তারা রিভাদের দেয়নি। তাদের দেয়ার কথাও না। সে কী চাচ্ছে, সেটি আমার বলাটা ঠিক হবে না।’

প্রাধ্যক্ষ বলেন, ‘ওর সঙ্গে আমরা বসব, কথা বলব। উত্তেজনাবশত অনেকে অনেক কিছু বলতে পারে। ওরা আমাদের সন্তানের মতো, তারা ভুল করতে পারে। ভুলটা আমরা সংশোধনের চেষ্টা করছি।’

ভুল করে শিক্ষার্থীদের এভাবে শাসাতে পারেন কি না জানতে চাইলে প্রাধ্যক্ষ বলেন, ‘হ্যাঁ, তারা যদি কোনো প্রেশার ক্রিয়েট করে বা টাকা-পয়সা দাবি করে, এটা নৈতিক না।’

ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে যাওয়ার জন্য জোর করার বিষয়ে তিনি বলেন, ‘এই ছাত্র আন্দোলন অনেক আগে থেকেই চলছে। ছাত্ররাই সবকিছু প্রতিষ্ঠা করে।’

ছাত্রলীগের কর্মসূচিতে নিয়ে যাওয়া আর ছাত্র আন্দোলন এক জিনিস কি না জানতে চাইলে নারগিস রুমা বলেন, ‘আমি সব সময়ই বলি, কেউ স্বতঃস্ফূর্তভাবে গেলে যাবে, নয়তো যাবে না। জোর করাটা ঠিক না। আমি তাদের নিয়ে বসব।’

তিনি আক্ষেপ করে বলেন, ‘হয়তো আমাদেরই ভুল। আমরা আমাদের সন্তানদের ঠিকভাবে শিক্ষা দিতে পারছি না। আমরা সেটা চেষ্টা করছি।’

রিভা চাইলে সবকিছু পারেন কি না- এমন প্রশ্নের জবাবে প্রাধ্যক্ষ বলেন, ‘রিভা যে বলছে সে চাইলে কাউকে নামাতে পারবে বা ওঠাতে পারবে, এই জিনিসটা ভুল। এটা ঠিক না। আমরাই কাউকে প্রয়োজন অনুযায়ী এক সিট থেকে আরেক সিটে নিয়ে যাব।’

কলেজের অধ্যক্ষ সুপ্রিয়া ভট্টাচার্য বলেন, ‘আমরা নিজের কানে কিছু শুনিনি। অডিওতে অনেক কিছু অ্যাড করা যায়।’

অডিওটা নিজের বলে রিভা স্বীকার করে নিয়েছেন। তা অধ্যক্ষকে জানালে তিনি বলেন, ‘আমাদের সব ছাত্রী আমাদের সন্তান। পরিবারে আমাদের ছেলেমেয়েরাও নানান সময়ে নানান কিছু করে থাকে। তাদের যেমন আমরা মাতৃস্নেহে রাখি, তেমনি শিক্ষার্থীদের ব্যাপারেও আমাদের মানসিকতা সেটাই।’

কলেজ প্রশাসনকে চ্যালেঞ্জ করে দেয়া বক্তব্যের বিষয়ে পদক্ষেপ নেয়া হবে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘হোস্টেল সুপাররাই বিষয়টি দেখবেন।’

এদিকে শুক্রবার মধ্যরাতে রিভা তার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে দেয়া পোস্টে ছড়িয়ে পড়া অডিওটির জন্য ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের কাছে ক্ষমা চেয়েছেন।

পোস্টে তিনি লেখেন, ‘ইডেন কলেজ ছাত্রলীগের প্রতিটি কর্মীর সঙ্গে আমার আত্মার সম্পর্ক। এরা আমার পরিবারের সদস্য ছাড়া অন্য কিছু নয়। একান্ত ব্যক্তিগত পরিবেশে হলেও দায়িত্বশীল জায়গা থেকে অসংযত ভাষার প্রয়োগ আমার অপরাধ হয়েছে বলে আমি স্বীকার করছি।

‘বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আমাকে এমন শিক্ষা দেয় না। তাই সংগঠনের প্রতি আমি ক্ষমাপ্রার্থী।’

শেয়ার করুন

কমেন্ট করুন

আরো সংবাদ পড়ুন